Zakia sultana Srabony

September 16, 2021 1 By JAR BOOK

কবি ও লেখক পরিচিতি

Zakia sultana Srabony

Student

Ishurdi, pabna

 

মৃত্যু যাত্রা

 

 

ভোর ৪টা বেজে ৩০ মিনিট….  ফজরের নামাজের এলার্ম বাজছে চারদিকে ফজরের আজান হচ্ছে…! উঠে বসলাম নামাজের জন্য উঠেই বড় রকমের একটা শক খেলাম!!আবছা আলোতে দেখলাম আমার মত দেখতে পাশে একজন শুয়ে আছে। এইটা আবার কে..? ভয়ে ভয়ে তাকে নাড়া দিলাম.. দেখলাম অচেতন। কোনো কথা বলছে না.. শরীর বরফের মতো ঠান্ডা””””   কিছুক্ষন পর বুঝতে পারলাম একজন মারা গেছেন !.. কিন্তু লাশটা এখানে কেনো?? এটা একদম আমার মতো দেখতে!! খুব ভয় পেয়ে গেলাম ছোট ভাইকে ডাকলাম কিন্তু সে আমার ডাক শুনতে পাচ্ছে না..আম্মুর কাছে গেলাম আম্মুকে ডাকলাম চিৎকার করলাম কিন্তু কেউ আমাকে শুনতে পাচ্ছে না। বুঝতে পারছি না এটা কি হচ্ছে এই লাশটাই বা কার??  কিছুক্ষন পর আম্মু এসে নামাজের জন্য ডাক দিলো…ছোট ভাই উঠে লাশটার কাছে এসে ডাকছে… আপি ওঠো আজান দিছে…! আমি পুরোই অবাক আমি তো এখানে ও লাশটাকে ডাকে কেনো..আমি ওকে বললাম কিরে তোর মাথাটা খারাপ হলো নাকি.. এটা কে এখানে কেনো??””””কিন্তু আমার কথা সে শুনতে পাচ্ছে না””””   এরপর সে লাশটা ধরে অবাক হলো চিৎকার দিয়ে উঠলো পাশের রুম থেকে আব্বু আম্মু এসে স্তব্ধ। ধপ করে খাটে বসে লাশটাকে ধরে ঝাঁকাতে লাগলো এবং চিৎকার করতে লাগলো, “”মা কি হইসে তোর..? কথা বলছিস না কেনো..? কথা বল…।”” আম্মু ব্যাপারটা বোঝার সাথে সাথেই জ্ঞান হারিয়ে ফেললো।   চিৎকার কান্না কাটি শুনে পাশের বাড়ির মানুষ আত্মীয় স্বজন দিয়ে ভরে গেলো বাড়ি ঘর কান্নার রোল পরে গেলো…!! সবাই লাশটাকে দেখে ইন্নানিল্লাহ পড়ছে…!””আমাকে রেখে লাশটাকে নিয়ে পড়লো সবাই কেউ আমাকে দেখতে পাচ্ছে না””””… আমার মনে হচ্ছে সবাই পাগল হয়ে গেছে.. কাউকে বোঝাতে পারছি না আমি বেঁচে আছি..   অবাক ব্যপার হলো কালকেও যেনো শরীরটা খারাপ লাগছিল!! হালকা কাশিও ছিল আজ যেনো নিজেকে খুব হালকা লাগছে তুলোর মতো,, কাশিটাও ভালো হয়ে গেছে..!! যাই হোক “”””অনেকেই বলা বলি করছে কার কখন মৃত্যু হয় কেউ জানে না কালও মেয়েটা হেসে হেসে কথা বলছিল..এতো ছোট বয়সে কেউ মারা যাবে ভাবাই যায় না।  আমি তখন লাশটার পাশেই দাড়িয়ে শুনছিলাম ওনাদের কথা….!   এখনো আমার কাছে সবকিছু পরিষ্কার না, কিছুই বুঝতে পারছি না। বাসার আশেপাশে প্রচুর মানুষের ভিড়। আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব সবাই এসেছে লাশটাকে দেখতে। কত পরিচিত মানুষ কান্নাকাটি করছে। কিন্তু কাউকেই বুঝাতে পারলাম না, আমি মারা যাই নি, আমি বেঁচে আছি, এটা অন্য কারো লাশ। “”কেউ আমার কথা শুনতেই পারছে না”   হঠাৎ শুনতো পেলাম মসজিদে মাইকিং করা হচ্ছে আমার বাবার নাম নিয়ে অমুকের মেয়ে অমুক ইন্তেকাল করেছে…  আমি যেনো হাই ভল্টেজের শক খেলাম… আমি মৃত কিভাবে হলাম..?? আমি তো বেচে আছি…!   কিছুক্ষণ পর লাশটার গোসল দেওয়া হলো পাশেই আমি দাড়িয়ে দেখছিলাম..  এতোদিন অন্যের লাশের গোসল দেখেছি আজ নিজের লাশের গোসল দেখছি কিন্তু কিছুই বুঝতে পারছি না… “””” গোসল শেষে সাদা কাফনের কাপড় পড়িয়ে খাটিয়ায় রাখা হলো লাশটা…!”””” লাশ ঢাকার জন্য মসজিদ থেকে কালো কাপড় নিয়ে আসা  হলো.. শেষবারের মতো অনেকেই লাশটা দেখলো।   জানাজা হলো যহরের পর…. লাশটা নিয়ে যাবার সময় আম্মু আব্বু আর ভাই লাশটা ধরে  কান্নায় ভেঙে পড়ল…. দেখে বুকটা কেপে উঠলো!! কি মর্মান্তিক দৃশ্য..    …লাশটা খাটিয়ায় করে নিয়ে যাচ্ছে খাঁটিয়ার সামনে আব্বু আর ভাই,,, “”আমি চিৎকার করছি চিৎকার করে কাদছি..””””কেউ শুনছে না। অবশেষে বুঝতে পারলাম আমি সত্যি আর এই জগৎএ নাই অনেক চেষ্টা করলাম লাশটাকে আটকাতে “”””পারলাম না…. “””” লাশটাকে কবরের কাছে নিয়ে যাওয়া হলো,,! দেখলাম আমার বড় বোনের কবরের পাশে একটা কবর খোড়া হয়েছে।  চারপাশে বৃষ্টিতে পানি জমা হয়েছে কবরেও অনেকটা পানি,,!!   অনেক কাদছি চিৎকার করে কাদছি আমাকে এই কবরে রেখো না…  আমি থাকবো না খুব কাদলাম কিন্তু কেউ শুনলো না…  মনের ভেতর ভয় করতে লাগলো শরীরে কাটা দিতে লাগল গত দুদিন আগেও ফজরের নামাজ পড়ি নি, কত নামাজের কাজা, গান শুনেছি, ফোন নিয়ে পড়ে থেকেছি… বেপর্দায় চলেছি…. “”””ভুলে গিয়েছিলাম মরে যাবো একদিন!””””… আল্লাহর কাছে মাফ চাওয়ার সময়টুকু পেলাম না””””…ইস যদি আর একবার এই জীবনটা ফিরে পেতাম কোনো পাপ করতাম না!!  সারাদিন নামাজেই পড়ে থাকতাম কিন্তু তা তো আর সম্ভব না..   আমার বডিটাকে ওই কবরে শুইয়ে দিলো বুঝলাম আমার সময় শেষ..সবাই চলে যাচ্ছিল আব্বু কবরের পাশে বসে ছিল সবাই তাকে জোড় করে নিয়ে গেলো…  আমি আস্তে আস্তে নিজেকে ফিরে পেলাম… একি কাউকে দেখতে পাচ্ছি না চারদিকে অন্ধকার… এখনি বোধহয় চলে আসবে মুনকার নাকির…  শুরু হয়ে যাবে সাওয়াল জবাব,,,না পারলে শুরু হবে আজাব..   শুয়ে শুয়ে অন্ধকারে পুরো ঘটনাটা ভাবলাম…এগুলো তো হবেই,, একদিন তো মারা যাবই….. ভাবলেই যদি এতটা ভয় করে,,, মৃত্যু হলে না জানি কতোটা ভয়ংকর হবে..হঠাৎ শোয়া থেকে উঠে বসলাম শরীরে প্রতিটা লোম শিউরে উঠেছে…  আমরা কতই না কম সময়ের জন্য পৃথিবীতে এসেছি ৫০-৬০ বছর তার ভেতর কতো কি করি… কতো প্রতিযোগিতা..  “”””কোনো কিছুই যেনো যথেষ্ট না আরও চাই আরও চাই”””” ভুলে গেছি সবাই যে মারা যেতে হবে খুব বেশি সময় নাই….   আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেদায়েত দান করুক… কবরের প্রস্তুতি নেওয়ার তৌফিক দান করুক আমিন💙       

 

 

 

 “