Sommohoni Ajibur

September 10, 2021 0 By JAR BOOK

 কবি ও লেখক পরিচিতি

Sommohoni Ajibur

প্রভাষক, হিসাববিজ্ঞান, বারদী হাই স্কুল এন্ড কলেজ 

প্রযত্নে: তাইজুদ্দিন, গ্রাম: মগবাজার, পো: বাংলা বাজার- ১৪৪০, উপজেলা: সোনারগাঁ, জেলা: নারায়ণগঞ্জ। 

তুমি আমার

সম্মোহনী আজিবুর

তুমি আমার ঘুমের সতীন নিস্তব্ধতার রাত ,
তুমি আমার শিশির মাখা ঝলমলে প্রভাত ।
তুমি আমার মধুর স্বপন জাগ্রত আঁখি ,
তুমি আমার শান্ত বিকেল নীড় ফেরা পাখি ।
তুমি আমার মৃদু তালে ঢেউয়ে দোলা পাল ,
তুমি আমার সাগর জলে ভেজানো প্রবাল ।
তুমি আমার সাজ বোশেখে ভালোবাসার ঝড় ,
তুমি আমার আপন আলোয় ঝলসানো শহর ।
তুমি আমার রোজ দুপুরে শব্দশুন্য ঘর ,
তুমি আমার ক্লান্ত নিবাস ঘুমেরি নহর ।
তুমি আমার একলা মনে গেয়ে যাওয়া গান ,
তুমি আমার মনের ভেতর প্রাণেরি সন্ধান ।
তুমি আমার মনাকাশে জোছনা বিরান রাত ,
তুমি আমার অমাবস্যার আদুরে প্রপাত ।
তুমি আমার নিথর নদী শান্ত দিঘির জল ,
তুমি আমার প্রণয় মাঝে বিশ্বাসে অটল ।
তুমি আমার রঙিন পাতায় বুকপোস্টের চিঠি ,
তুমি আমার টেলিপ্যাথির একমাত্র দিঠি ।
তুমি আমার টিনের চালায় ছন্দতে মধুর ,
তুমি আমার একলা থাকা বেদনা বিধুর ।
তুমি আমার এক ফাগুনের নতুন ফোটা ফুল ,
তুমি আমার বিষম প্রেমের ঝড়েতে আকুল ।
তুমি আমার মৌন তাপে গলে যাওয়া মোম ,
তুমি আমার কাঁপন মাঘে মিশে থাকা ওম ।
তুমি আমার এক সীমান্ত আনন্দের চাহন ,
তুমি আমার মন দিগন্ত উচ্ছ্বাসের বাহন ।
তুমি আমার এক বসন্ত আগমনী দূত ,
তুমি আমার সদ্য কুঁড়ি ফোটাতে প্রস্তুত ।
তুমি আমার নীলাচলের নিরন্তর ঝর্ণা ,
তুমি আমার সবুজ গাঁয়ের পাহাড়ি কন্যা ।
তুমি আমার গল্পে আসা সুখের সাতকাহন ,
তুমি আমার জল চাতকী অপেক্ষার শ্রাবণ ।
তুমি আমার পদ্যে লেখা নীতিরও কথন ,
তুমি আমার পটে আঁকা রঙ্গেরি বপন ।
তুমি আমার খরতাপে বর্ষাতে উন্মন ,
তুমি আমার থৈথৈ মনে শাপলা ফুল দোলন ।
তুমি আমার সাঁঝের বাতি পিলসুজে জ্বলন ,
তুমি আমার ঘুম তাড়ানো চেষ্টার আস্ফালন ।
তুমি আমার আষাঢ় মাসে আশার জলোচ্ছ্বাস ,
তুমি আমার বাষ্প জলে ভেজার পূর্বাভাস ।
তুমি আমার গ্রীষ্মকালে চাতকিনীর জল ,
তুমি আমার আদরমাখা চোখেরি কাজল ।
তুমি আমার হাওয়াই মিঠার মিশে যাওয়া ক্ষণ ,
তুমি আমার বন্ধ চোখের দৃষ্টির আলাপন ।
তুমি আমার ভর দুপুরে রোদের বিচরণ ,
তুমি আমার ভেসে আসা ফুলেল শিহরণ ।
তুমি আমার ফুটে উঠা অনুভবের নাম ,
তুমি আমার আঙ্গুল ছোঁয়া দিনলিপির কলাম ।
তুমি আমার সকাল সাজে বিমুগ্ধতার ভাঁজ ,
তুমি আমার ছবিমালার হাজারটা কোলাজ ।
তুমি আমার মধু মাসে রসেতে টলমল ,
তুমি আমার আবেগ জড়া ফিনফিনে আঁচল ।
তুমি আমার আতু আতু আহ্লাদে ডগমগ ,
তুমি আমার শাসন তলে নিত্যকার ছবক ।
তুমি আমার আবির মাখা নীরবে ভ্রমণ ,
তুমি আমার ঘুমন্ত সুখ দায়িত্ব গ্রহণ ।
তুমি আমার শরত রাণী বাহারি কাশবন ,
তুমি আমার আশার বীজে উপ্ত যে আসন ।
তুমি আমার সোনালি ধান নবান্নের উৎসব ,
তুমি আমার হলদে মাঠে পাখির কলরব ।
তুমি আমার ধান মাড়াইয়ে গরুর হাট হাট হাঁক ,
তুমি আমার রোমন্থনের স্মৃতির হাজার ভাগ ।
তুমি আমার কার্তিক মাসের হৈমন্তিক পিঠা ,
তুমি আমার আগাম শীতের হালকা রোদ মিঠা ।
তুমি আমার কোজাগরী সুনির্মল আকাশ ,
তুমি আমার শিশির সিক্ত শিউলীর সুবাস ।
তুমি আমার শ্রাবণধারা টিনের ঢেউয়ে জল ,
তুমি আমার কৃষাণ বধূর হরিণী কাজল ।
তুমি আমার ভাদ্র মাসের পাকা তালের ঘ্রাণ ,
তুমি আমার মেঘ আকাশে শরতের আহ্বান ।
তুমি আমার ধানের শীষে ক্লান্ত শ্রমের ঘুম ,
তুমি আমার সারেং বধূর স্মৃতি মাখা চুম ।
তুমি আমার চৈত্র মাসে গনগনে গরম ,
তুমি আমার চৈতি হাওয়া আনন্দ পরম ।
তুমি আমার গোঁত্তা মারা দুরন্ত ঘুড়ি ,
তুমি আমার মাঞ্জা সুতায় দোল খাওয়া পরী ।
তুমি আমার পৌর্ণমাসী মোম চাঁদের বহর ,
তুমি আমার পৌষালি ধান সোনালি প্রহর ।
তুমি আমার মেঘ মেদুরে মাঝি মাল্লার গান ,
তুমি আমার দাঁড় টানা সুখ ধরে ঐকতান ।
তুমি আমার অঘ্রানের মাঠ আঁচল পাতা রূপ ,
তুমি আমার পল্লীবালার দৃশ্য অপরূপ ।
তুমি আমার ভাতের গমক ক্ষুধার তীব্র বেগ ,
তুমি আমার কান্না গেলা বিরহ আবেগ ।
তুমি আমার অন্তিমাহ্নের নিশীপক্ষীর ডাক ,
তুমি আমার ভাঙ্গা ঘুমের বেঙ্গমা সবাক ।
তুমি আমার খেলাঘরের হরেক আয়োজন ,
তুমি আমার হিজল তলের মধুর স্মৃতিক্ষণ ।
তুমি আমার চুইয়ে পড়া রূপোর জোছনা জল ,
তুমি আমার কদম ফুলের পরশে মখমল ।
তুমি আমার চাঁদের হাটে আড্ডাবাজির ধুম ,
তুমি আমার মিলন বেলায় উষ্ণ প্রেম কুসুম ।
তুমি আমার মেঘের ভাঁজে ছায়ালোর খেলা ,
তুমি আমার মেঘের কণায় রামধনুর মেলা ।
তুমি আমার লতানো দুখ সম্ভাবনার ফুল,
তুমি আমার প্রত্যাশাতে সম্ভবে মশগুল।
তুমি আমার সবুজ বুকের বৃত্তখানি লাল ,
তুমি আমার রণক্ষেত্রের বিজেতা দামাল ।
তুমি আমার ভীষণ আপন মায়ের ভাষার কোল ,
তুমি আমার হৃদয় মাঝে গর্জে উঠা বোল ।
তুমি আমার স্বাধিকারের কৃষ্ণচূড়ার ডাল ,
তুমি আমার বাংলাদেশের মায়াময় তমাল ।
তুমি আমার স্বরবৃত্তে কবিতার ফসল ,
তুমি আমার নির্ভীক ঘুমের বিশ্ব মা’র অঞ্চল ।”