Nishat Tabassum

September 23, 2021 16 By JAR BOOK

কবি ও লেখক পরিচিতি

Nishat Tabassum

Student

Fire Service More,Jhalakati 

একুশ এলে

একুশ এলে গাছ ভরে ওঠে
কৃষ্ণচূড়ার ফুলে,
একুশ এলে নতুন পাতা
নরম হাওয়ায় দোলে।
একুশ এলে হাওয়ায় মেশে
লাল গোলাপের ঘ্রাণ,
একুশ এলে কানে বাজে
বাংলা ভাষার শ্লোগান।
একুশ এলে বুকের মাঝে
রক্ত পলাশ ফোটে,
একুশ এলে দামাল ছেলে
আবার জেগে ওঠে।
একুশ এলে বাংলায় জ্বলে
প্রতিবাদের আগুন,
একুশ মানে ভাষা শহিদের
রক্তে রাঙা ফাগুন।
একুশ এলে মায়ের বুকে
জেগে ওঠে হাহাকার,
একুশ মানে বাংলা ভাষার
উজ্জ্বল অক্ষর।
একুশ এলে খুন-রাঙা সেই
ইতিহাস ঢেউ তোলে,
একুশ এলে বর্ণমালা
শহিদের কথা বলে।
একুশ এলে কণ্ঠে জাগে
বাংলার জয়গান,
রক্তে পাওয়া বাংলা ভাষা
হোক চির অম্লান।

নিস্তব্ধ জীবন

সময় থমকে গেছে,
অনুভূতিরাও স্তব্ধ।
ভাবনারা আজ খেলছে না ঢেউ
হৃদয় নদীর তীরে,
কল্পনারাও হারিয়ে গিয়েছে
বাস্তবতার ভীড়ে।
ইচ্ছেগুলোকে হারিয়ে ফেলেছি
ভাসছি এ কোন স্বপ্নে,
ধুলো জমে যাওয়া কবিতার খাতা
অভিমানী অযত্নে।
ছন্দরা আজ বড় এলোমেলো
অচেনা সকল শব্দ,
থেমে গেছে যেন সব কোলাহল
জীবন নিস্তব্ধ।

সময়ের গাড়ি

সময়ের গাড়ি ছুটে চলে শুধু
থামে না তো কোনো স্ট্যান্ডে,
পৌঁছে সে যাবে খুব তাড়াতাড়ি
বহুদূর গন্তব্যে।

দুর্বার বেগে সময়ের গাড়ি
অবিরাম ছুটে চলে,
পিছু ফিরে সে দেখে না কখনো
কত কী এসেছে ফেলে!

ধরতে সে গাড়ি আমরা সবাই
ছুটি তার পিছুপিছু,
যাত্রী না পেলে তবু ছুটে চলে
না আসে না যায় কিছু।

সময়ের গাড়ি ধরেছে যে জন
সেই তো সফল হয়,
ধরতে না পেলে সাফল্য তার
অধরাই থেকে যায়।

বসন্তের পঙক্তিমালা

আজ দখিন হাওয়ার স্নিগ্ধ পরশ
পুলক জাগায় প্রাণে,
পিক কী আজ বলছে আমায়
অবিরাম কুহুতানে।
মনপ্রাণ আজ রাঙা হয়ে ওঠে
কৃষ্ণচূড়ার লালে,
কচি কিশলয় কাঁপে থরথর
শুষ্ক গাছের ডালে।
না বলা মনের যত কথা আজ
উঁকি দেয় জানালাতে,
ছন্দরা যেন দিতে চায় ধরা
অব্যক্ত পঙক্তিতে।
সাদামাটা যত কবিতার খাতা
ছন্দরা বেরঙিন,
নববসন্তে ফিরে পেল রঙ
আজ বসন্তের দিন।

লকডাউনের এই শহরে 

এই শহরে আজ কোথাও কেউ নেই 
দুপুরের রোদে পুড়ছে রাস্তা, 
ছাতা মাথায় মানুষের ভিড় নেই। 
 
শহরটা আজ বৃষ্টি ভেজে একা, 
আর ভেজে এই শহরের কাকেরা। 
ওদের জন্য তো কোনো লকডাউন নেই! 
 
এই শহরে আজ কোনো শব্দদূষণ নেই,
নেই কোনো কোলাহল কিংবা গাড়ির হর্ন। 
ব্যস্ততা ভুলে শহর আজ চুপচাপ, 
ঘুচে গেছে যেন দিন-রাতের ব্যবধান। 
 
শহর জুড়ে আজ শুধুই থমথমে নিরবতা, 
যেন ঘুমিয়ে গেছে শব্দমুখর চেনা সে শহরটা। 
জানিনা কবে ফিরবে প্রাণ এই মৃতের শহরে, 
আড়মোড়া ভেঙে জাগবে শহর কাক-ডাকা কোন ভোরে। 
 
এই শহরের মানুষেরা আজ যেন জীবন্ত লাশ! 
চার দেয়ালে বদ্ধ তাদের প্রতিটি নিঃশ্বাস। 
পুরো শহরের বাতাস জুড়ে আজ আতঙ্কের ঘ্রাণ, 
করোনা ভাইরাস কেড়ে নিয়েছে এই শহরের প্রাণ।