Bishal Dey

September 6, 2021 0 By JAR BOOK

 কবি ও লেখক পরিচিতি

Bishal Dey

ছাত্র

রাজাপুর লেইন,আন্দরকিল্লা,চট্টগ্রাম

কল্পনার বাস্তব প্রকাশ

লেখা✍– বিশাল দে

দেশের শীর্ষস্থানীয় জাতীয় দৈনিকে ছদ্মনামে ছাপা হয় অসহায়, স্বামীর নিগ্রহের শিকার নারীকে নিয়ে কাল্পনিক গল্প।

দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেই নাম এবং গল্প অনেকটাই মিলে যায় এক নারীর সাথে।কাকতালীয় হলেও সত্যি সেদিনের সেই পড়াটা অফিসের পত্রিকায় পুরোই পড়েন তার স্বামী।সেদিন একটি পত্রিকা কিনে নিয়ে আসেন বাসায়।

অফিসে বসের সাথে কথার লড়াই করতে না পেরে সহ্য করা স্বামী বাসায় এসে কোনো ছুতো ছাড়াই স্ত্রীকে অকথ্য ভাষায় কথা বলতে থাকে।সন্তানদের সামনেই।

স্ত্রী কিছু বুঝে উঠার আগেই বলে,””আমার বিরুদ্ধে লেখালেখি করস!দেশের মানুষকে বুঝাইতে চাস না যে তুই কষ্টে আছস? ঠিকানা টা ও দিয়া দিতি,তরে আইয়া লইয়া যাইতো যে নিতে চায়।””

স্ত্রী স্বাভাবিকভাবে কিছু না বুঝে কি হয়েছে জিজ্ঞেস করতে চাইলে তেড়ে আসে স্বামী।”” ন্যাকামি করস?আমারে কি তোর মঘা মনে হয়?তুই বুঝাইবি আর আমি বুঝতে থাকুম?বাইর হ ঘর থেইকা।অখন বাইর হ।””

স্ত্রী তখনও কিছু বুঝে উঠতে না পারলে স্বামীকে যখন কি হয়েছে জিজ্ঞেস করে তখন সে পেপার টা ছুড়ে দেয় স্ত্রীর দিকে।

স্ত্রী তখনও না বুঝতে পারলে স্বামী সেই পাতা খুলে সামনে দেয়।””এটাই তো চাইছিলি না!আমার অফিসের সবাই জানুক,সারা দুনিয়া জানুক,তুই কষ্টে আছস….””

স্ত্রী তখন সেটা পড়ার পর স্বামীকে বোঝাতে চেষ্টা করে যে এটা সে বা তার কথা কেউ লিখেনি কিংবা লিখলেও তার জানা নাই।

স্বামী আবার রেগে তার দিকে তেড়ে আসে। তখন স্ত্রী পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেয়ার নাম্বারে ফোন করে হেড অফিসের নাম্বার চেয়ে নেয় সম্পুর্ন ঘটনা বলে।

পরে পত্রিকা অফিস থেকে তাদের ফোন করে তার স্বামীকে সব বলা হয় যে এটা সম্পুর্ন কাকতালীয় ঘটনা।

এটার সাথে তাদের কোনো সম্পর্ক নেই।এটা এডিটরের একান্ত চিন্তা থেকে দেয়া নাম।পরে সব সমস্যা সমাধান হওয়ার পর সেটা আবার ঐ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

পত্রিকায় স্ত্রীকে নিগৃহীত করার ঘটনা জনসমক্ষে আসার কারনে সেই থেকে আর ঐ স্বামী স্ত্রীর সাথে খারাপ ব্যবহার করে না।

এভাবে সংসারে সুখ ফিরে আসে একটা মেয়ের।

পরিশেষে,বলতে চাই,গল্পটাও আমার নিজের কল্পনায় সৃষ্ট কাল্পনিক সত্তার প্রকাশ মাত্র।সম্পুর্ন গল্পই কাল্পনিক। এর সাথে বাস্তবের কোনো মিল নেই।