সাক্ষী

October 15, 2020 0 By jarlimited

তৈয়মুন হাসান

আমার নির্ঘুম রজনীতে ভেসে ওঠে তোমার রক্তিম দেহখানি,
যেখানে হায়েনার দল করেছিলো উন্মাত্ত উল্লাস,
নখরের আছড় – দাঁতের কামড়ে ক্ষতবিক্ষত করেছিলো তোমার শরীর-
এ শহরে কেউ শোনেনি তোমার গলাচেরা চিৎকার কেউ দেখেনি, কেউ জানতে চায়নি!!!
আমি,
স্বামী-ভাই-বাবা সব চরিত্রে আজ ব্যার্থ হয়েছি-
রক্ষা করতে পারিনি নিজের শিশুকে, নিজের বোনকে,বউকে এমনকি বৃদ্ধা জননীকেও,
হায়েনার দল আজো কুড়ে কুড়ে খায় আমি চেয়ে থাকি হাড়গুলোর দিকে শকুনের দৃষ্টিতে-
কবে নিধন হবে হায়েনার দল???
আর আমি,
তাদের গোশত কুরে কুরে খাবো,প্রতিশোধের ক্ষুধা মেটাবো –
ওদের রক্তে কবে তৃষ্না মেটাবে আমার জন্মভূমি???
অপেক্ষায় কাটছে প্রতিটি সময় কবে জাগ্রত হবে এ সুশীল সমাজ???
নিধন করবে মানুষরূপি হায়েনাগুলোকে-
রক্ষা পাবে আমার মা-বোন-বউ-মেয়ে!!!
আমার গলার লোম উঠে গেছে-বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছে মেরুদণ্ড,
লজ্জায় নুয়ে গেছে মাথা আজ তোমাদের নিশ্চুপতার কাছে, তবুও-
আমি ভেংগে পড়িনি আজো শকুনের দৃষ্টি নিয়ে জেগে থাকি -আমি,
শতো হায়েনার উন্মাত্ত উল্লাস এবং-
ধর্ষীতা মা-শিশু-বোন-বউয়ের নির্লিপ্ত চিৎকার এর সাক্ষী!!!!

পুরনো_শহর

আমি অনেক অনুভব করি আমার পুরনো শহরকে
যে শহরে মেঠোপথের গন্ধ আমায় পাগল করতো
হারিয়ে যেতাম সবুজের মাঝে কখনোবা,
সরিষা ক্ষেতের অবারিত হলুদে-
সেই শহর,
যেখানে ফেলে এসেছি আমার রঙ্গীন কৈশর,
ঘুড়ি ওড়ানো,বর্ষায় ফুটবল কিংবা ডাংগুলি খেলার দিনগুলো-
আর কি পাবো কখনো সে শহর???
যে শহরে এতো ধূলাবালি ছিলোনা,
ছিলোনা মৃত্যুর মিছিল কিংবা কোলাহল,
হ্যাঁ ঝগড়া হতো তবে সেথায় বিচ্ছেদ ছিলোনা!
আমার সে শহর ছিলো ভালোবাসায় মোড়ানো
সেথায় ভালোবাসার নামে কেউ ব্যাবহৃত হতোনা পণ্যের মতো,
ঘুরে বেড়াতো না সবাই যত্র-তত্র, হতোনা ধর্ষণ-টিজিং,
ছোট-বড়ো সবাই সবাইকে সম্মান করতো,
শ্রদ্ধা করতো ভালোবাসতো,
সাপ্তাহিক ছুটির দিনে সবাই ছিনেমা দেখতে একত্রিত হতো উঠানে –
এতোটা স্বার্থপর সমাজ সে শহরে ছিলোনা,
সেখানে নদীর চরে কাদা ছোড়াছুড়ি খেলতাম- গোসল করতাম,
স্কুল শেষে ছুটে চলে যেতাম খেলার মাঠে,
জানো,
তখন আট আনার টকমিষ্টি চকলেট পাওয়া যেত
পাওয়া যেত কুলফি মালাই, লজেন্স সমগ্র-
ভালোবাসার ফেরিওয়ালা আসতো তার বিখ্যাত প প হর্ন দিতে দিতে,
সেই শহর আজ কতো পাল্টে গেছে!!!
মানুষগুলো হয়ে গেছে ইট-পাথরের মতো নীরব
অসাম্প্রদায়িক সমাজ আজ হয়ে উঠেছে সাম্প্রদায়িক,
কেউ কারো ভালো দেখতে পারেনা,
পোশাক-আশাকে অপসংস্কৃতির ছোয়া-
মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে সেই সকল মুক্তমনা,
রেহাই নেই কারো মা-বোন হয় অপমানিত,
তরুণ সমাজ আজ প্রযুক্তির প্রভাবে ভুলতে বসেছে নিজেকে-এ কেমন শহর?????
ক্ষমতার বলে যেখানে ঢুকেছে মাদক, অলিতে গলিতে মার্বেল খেলার বদলে সব আজ নেশাগ্রস্থ!!!
আমি থাকতে চাইনা এ সমাজে-এই শহরে,
ধূলাবালি আর অরাজকতায় আমার শ্বাসকষ্ট হয়-
রেহাই দাও আমায়, ছেড়ে দাও আমি চলে জাবো-
আমার সেই শহরে কথা দিলাম আর আসবো না,
কলম ধরবো না আধুনিকতা,অসাম্প্রদায়িকতার নামে অশ্লীলতার বিরুদ্ধে-!!!!

Date: October 5, 2020
Time: 3:54 pm