মিছিল

October 15, 2020 0 By jarlimited

মো নাজমুল হুসাইন

আমি যেন ডিমের কুসুম হতে বেরিয়ে আসা কচ্ছপের ছা,
চোখ মেলতেই দেখি পৃথিবীর গর্ভে লুকিয়ে পড়া বিশাল সমুদ্র।
দুরন্ত গিরগিটির মত,জলরাশীর ফেনাময় লোনা জল তাড়া করে ফিরে উত্তুরে ঝড়।
ভেঙে গেছে হিমালয়,থেমে গেছে তামুম্যাসিফ,উড়ে গেছে ক্রিসোপেলিয়া প্যারাডেসি,পুড়ে গেছে পৃথিবীর ফুসফুস;
বেঁচে আছে কেবল গ্রেটা থুনবার্গ;
আর বেঁচে আছি আমি,আমরা কবিরা…..।
একজন প্রকৃতি বাঁচাবার নেশায় উন্মাদ,অসাম্প্রদায়িক,অকল্পনীয় এক প্রতিবাদী তরুনী,
আর আমরা কবিরা,মানুষ জাগাবার নেশায় ছুটেছি উত্তুঙ্গ বাতাসের মত;
ছুটে চলেছি কালি ও কলমের রক্তপাতের মধ্য দিয়ে;
ছুটে চলেছি অশ্ব ক্ষুরের খুন হাতে নিয়ে,
শক্ত আর নিঠুর পাথরের ক্রন্দন পিয়াসী,অদৃশ্য বোবা কান্না হয়ে।
তবুও মানুষের গন জাগরণ দেখি না কেন?
তবুও মানুষের মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার স্বাদ নেই কেন?
তবুও মানুষের স্বপ্নীল স্বপনরা আজ,ধোড়া সাপের মত বিষ হারা কেন?
কেন অধিকার বঞ্চিত মানুষেরা দিনকে দিন শুয়ে পড়ছে মৃতদের কবরে,অন্ধ কুপের অতল গহব্বরে,সীমাহীন অক্লেশে?
কেন আজ আর মিছিল বেরোয় না?
মিছিল বেরোয় না টি এস সি,শাপলা চত্বর,রমনার আকাশ বাতাস,প্রতিবাদে ঝলসানো বিজয় গীত,শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত করে দিয়ে?
কেন আজ আর টর্পেডো,ভীম,ভাসমান মাইন,বিদ্রোহীরা কারাগারের লৌহ শিকল ভেঙে দাগ বসিয়ে দেয় না;
দাগ বসিয়ে দেয় না সাপ বিচ্ছুদের অন্তরজ্বালায়.?
কেন দম পীড়নের সীমাহীন নাটকীয়তা,লর্ড ক্লাইভের ছুরি হয়ে,সমস্ত আঁখি গুলোর কলজে টুকরো টুকরো করে খায়,ঝকঝকে তকতকে ফ্লাশের আঁড়ালে বসে?
কেন আজ সমস্ত উর্বর প্রাণ গুলো মরে গেছে?
বৃষ্টিহীন ধূসর মরুভুমির মত শুকিয়ে শশান হয়ে গেছে?
কেন আজ আর সে অগ্নি গর্ভ হতে বেরিয়ে আসে না,রফিক,শফিক,বরকত,সালাম?
কেন একটি উন্মাদ,শিহরণ জাগানিয়া ভাষণ শুনতে পাইনা আজ?
কেন টগবগে,দূরন্ত ত্রিশুলের মত প্রাণ চঞ্চল ঘোষণা শুনতে পাই না?
কেন অসীম সাহসীকতায় ভরপুর,মুষ্টিবদ্ধ স্বাধীনতার হুঙ্কার শুনতে পাইনা?
কেন ক্ষমতাসীনদের সিন্ডিকেট,লজেন্সের মত চুষে চুষে খায়,শহর,বন্দর,পাড়া গাঁও?
কেন রক্ষক আজ ভক্ষক হয়ে ওঠে?
কেন গোডাউনের তাজা রক্তকে,মধু বানিয়ে ভোজন করে সঙ্ঘবদ্ধ ছারপোকা?
আজ আর কেন অন্যায়ের প্রতিবাদ হতে দেখিনা?
কেন বাংলার উর্বর ধুলো মাটি ঝেড়ে,বার বার দাঁড়িয়ে যায় মীরজাফরদের খুন রাঙা তালোয়ার?
বাংলার বাঘ অথবা এক জন মাওলানা কোথায়?
কোথায়…?
কোথায় সে সারি সারি মিছিলের বহর?
যে মিছিলের খই ফোটা সমুদ্রের ভেতর দিয়ে,হুর পরিদের সুঘ্রাণ পাওয়া যায়;
যে মিছিলের প্রতি পদক্ষেপের দুঃসাহসিক স্পর্শে,মরিচীকার আস্তা কূড়ে নিক্ষিপ্ত হয়,গলিত প্রাণ কাফির বজ্জাত।
আর একটি মিছিল দেখি না কেন?
যে মিছিলের উত্তুঙ্গ বাতাসে,সর্বহারা মায়ের ভাঙা দর্পন,চিত্রকলার জন্ম দেয়;
যে পুষ্প মিছিলের বারুদ ঘ্রাণে,বঞ্চিত মানুষের আর্তনাদের গান শোনা যায়,
যে মিছিলের বিজয়োল্লাসে,হিন্দু মুসলমানের গলাগলি হয়,নজরুলের দুচোখ ভরা স্বপ্ন জুড়ে;
যে মিছিলের গোস্তের মত তাজা প্রাণ আছে,পুষ্পের মত তাজা ঘ্রাণ আছে,মর্দের মত তেজী তূণ আছে;
রাতকে দিন বানাবার ক্ষমতা যে মিছিলের আছে,
গোরকে ঘর বানাবার ক্ষমতা যে মিছিলের আছে,
শত্রুকে মিত্র,মিত্রকে শত্রু বানাবার ক্ষমতা যে মিছিলের আছে,
যে মিছিলের কাছে মৃত্যু,মৃত্যুর পরোয়ানা,এক অত্যাশ্চর্য উপহার,
সেই শাশ্বত,সুমিষ্ট উর্বশী গান,সর্গহারা দেবতার তীক্ষ্ণ বান,
সঙ্ঘবদ্ধ এক অনশন মুখর আদিম মিছিল চাই আর একটি বার।
(সমাপ্ত)

Date: October 5, 2020
Time: 9:26 pm